close
Breaking News:
Thanks for visit our Website


ad space

অদৃশ্য মানব PDF Download | Odrishyo Manob Book - এইচ. জি. ওয়েলস

odrishyo-manob

অদৃশ্য মানব বই pdf download | লেখকঃ এইচ. জি. ওয়েলস (H.G. Wells) খুবই চমৎকার একটি সায়েন্স ফিকশন অনুবাদ বই | অদৃশ্য মানব in english - অদৃশ্য মানব গল্পের লিংক - অদৃশ্য মানব উপন্যাস কোনে লিখিছিল - অনুবাদ শেখার বই pdf - অদৃশ্য অর্থ - অদৃশ্য english meaning. 

 

অদৃশ্য মানব বই রিভিউঃ

ফেব্রুয়ারীর কনকনে শীতের এক সকাল। ইংল্যান্ডের প্রত্যন্ত গ্রাম আইপিংয়ে হঠাৎ আগমন ঘটে এক রহস্যময় আগুন্তুকের। আগুন্তুক আশ্রয় নেয় মিসেস হলের সরাইখানায়। সে দেখার মতো এক জবরজং চরিত্র। তার সারা শরীর ব্যান্ডেজ দিয়ে মোড়ানো। বিনা দরাদরে সে মিসেস হলের একটি রুম ভাড়া নেয়।

 শীতে সাধারনত আইপিংয়ে অতিথি পাওয়াই যায় না। যারফলে মিসেস হল বেশ খুশিই হন। আগুন্তুকের সাথে বেশ কয়েকবার আলাপ জমাতে চেষ্টা করেন তিনি কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হন। কি এক অমোঘ কারনে এই আগুন্তুক হয়ে উঠে সবার কৌতুহলের কেন্দ্র। সবাই তার সর্ম্পকে জানতে চায়। তবে তার সঠিক কারন কেউ মনের মধ্যে খুজেও পায় না। আগুন্তুকের চেহারা কেউ দেখেনি। এমনকি মিসেস হল তার নামও জানেন না।

তবে যাই হোক সেই আগুন্তুকের ব্যাপারে দিন দিন সবার আগ্রহ বাড়তে থাকে। আগ্রহটা আরো বেড়ে উঠে যখন আগুন্তুকের মালপত্র সর্ম্পকে সবাই জানতে পারে। তার মালপত্রের মধ্যে আছে অসংখ্য রাসায়নিক পর্দাথের বোতল ও শিশি। পর্দাথ বিজ্ঞান সর্ম্পকিত অনেক বই ও রির্সাচ পেপার। তবে সময়ের সাথে সাথে পরিস্থিতি বদলাতে থাকে। সবার কৌতুহল এই আগুন্তুককে ক্রোধানিত্ব করে তোলে। এমন সময় মিসেস হলের এক প্রতিবেশীর ঘরে চুরি হয়। প্রতিবেশী শব্দ শুনে সঠিক সময়ে সর্তক হয়েও চুরি ঠেকিয়ে রাখতে পারেনা। যেনো অদৃশ্য অবস্থায় কেউ ঘরে ঢুকে তার টাকা নিয়ে কেটেছে।

যদিও কোনো প্রমান নেই তারপরও সবার সন্দেহ রহস্যময় সেই আগুন্তুকের দিকেই যায়। মিসেস হলের সাথে সেই মুর্হুতে কথা কাটাকাটির ফলে এই আগুন্তুক তার চেহারা দেখিয়ে দেয় যা দেখে মিসেস হলের জান ভয়ে উড়ে যাবার যোগাড় হয়। মিসেস হল ও তার পরিচারিকা দেখতে পান একটি মুন্ডু ছাড়া ধর যা কথা বলছে আবার খাওয়া দাওয়াও করছে। হামলে পড়ে সবাই আগুন্তুকের ওপর। কিন্তু তাকে আটকে রাখা সম্ভব হয়না। সে বরং উপস্থিত কয়েকজনকে ভালো রকম ধোলাই দিয়ে ওখান থেকে কেটে পড়ে।

একটু পর আগুন্তুক মার্ভেল নামক এক ভবঘুরেকে বেছে নেয় তার উদ্দেশ্য হাসিলের মাধ্যম হিসেবে। আগুন্তুক মার্ভেলকে দিয়ে তার ডায়েরী ও রিসার্চপেপার চুরি করায় এবং গ্রামে একটা লন্ডভন্ড কান্ড ঘটিয়ে দেয়। তবে সৌভাগ্যক্রমে মার্ভেল তার হাত থেকে পালিয়ে যায় এবং সাথে নিয়ে যায় আগুন্তুকের ডায়েরী ও রির্সাচ পেপার। আহত, ক্লান্ত ও ক্ষুর্ধাত অবস্থায় আগুন্তুক আশ্রয় নেয় ডাক্তার কেম্পের বাড়িতে। এদিকে ততোদিনে প্রচার হয়ে গেছে একজন অদৃশ্য মানব ইংল্যান্ডের প্রত্যন্ত কিছু গ্রামে ত্রাস ও ভয়ের পরিস্থিতি তৈরী করেছে। পত্রিকায় তাকে নিয়ে খবর ছাপানো হয়। কেউ তার উপস্থিতি বিশ্বাস করে, কেউ করে না। ডাক্তার কেম্পের আশ্রয়ে আগুন্তুক খাবার ও বিশ্রামের মাধ্যমে কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠে।

জানা যায় সে ডাক্তার কেম্পের এক সময়ের পরিচিত একজন মানুষ। বন্ধুই বলা যায়। সে নিজের পরিচয় দেয় গ্রিফিন বলে। অবশেষে গ্রিফিন সব কথা খুলে বলে কেম্পকে। কি করে ডাক্তারি থেকে তার আগ্রহ পর্দাথ বিজ্ঞানে যায়, কি করে সে আলোকবিদ্যা নিয়ে কাজ শুরু করে এবং কিভাবে সে অদৃশ্য হওয়ার ফর্মুলা আবিষ্কার করে। এবং কি করে সে এটা নিজের ওপর পরীক্ষা করে বিনা বিবেচনায়। গ্রিফিনের মতে সে প্রথমে ভেবেছিলো অদৃশ্য হতে পারলে সে অনেক সুবিধা পাবে কিন্তু পরে সে বুঝতে পারে একজন অদৃশ্য মানুষকে কতো কষ্টের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়।

তবে এবারে সে একটি পরিকল্পনা করে যারজন্য সে কেম্পের সাহায্য কামনা করে। প্রথমে সে খুজে বের করবে মার্ভেলকে। তাকে খুন করবে এবং তার ডায়েরী উদ্ধার করবে। এরপর সে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করবে পুরো অঞ্চল জুড়ে। সেই হবে এই অঞ্চলের রাজা। কেম্প তার ভয়ানক পরিকল্পনা শুনে চমকে উঠেন। ইতিমধ্যে কেম্পের দেওয়া খবরে হাজির হয় পুলিশ কিন্তু হাতছাড়া হয়ে যায় অদৃশ্য মানব।

 এরপরই অদৃশ্য মানব প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়, খুন করবে সে কেম্পকে। এ অবস্থায় কি পারবে ডাক্তার কেম্প অদৃশ্য মানবের হাত থেকে নিজেকে বাচাতে? কি করে সে অদৃশ্য মানবের অশুভ পরিকল্পনা ভন্ডুল করবে? কি সেই ফর্মুলা যারফলে গ্রিফিন পরিণত হলো অদৃশ্য মানবে? গ্রিফিন কি মার্ভেলকে খুন করে পুণুরুদ্ধার করবে তার হারিয়ে যাওয়া ফর্মুলা? সে কি আবার স্বাভাবিক মানুষে পরিণত হবে নাকি থেকে যাবে এক অদৃশ্য মানবে?

বইটা এক কথায় অসাধারন। কাহিনীটা সবখানে সুন্দর এগিয়েছে। সায়েন্স ফিকশন হিসেবে খুব দারুন। সাধারনত সুপার হিরো হওয়ার স্বপ্ন সব মানুষেরই থাকে। এবং মুভিতে সবাই সুবিধাটা দেখে ভাবে সুপার হিরোদের কতো সুবিধাই না পেতে হয়। কিন্তু এসবের যে অসুবিধাজনক দিকটা থাকে তা কিন্তু আমরা মোটেও ভেবে দেখি না। তেমন একটা চিন্তাধারাই লেখক সুন্দরভাবে টেনে এনেছেন।

সেইসাথে বিজ্ঞানের অসাধারন শৈল্পিক উপস্থাপন করেছেন বইতে। যারা পর্দাথ বিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করেন তারা এসব ব্যাপার আরো ভালো বুঝতে পারবেন। বেচারা গ্রিফিনের জন্য দুঃখই হয়। অনেক প্ররিশ্রমের ফর্মুলাটা যেনো তার জন্য কাল হয়ে দাড়িয়েছিলো। বিজ্ঞান ছাড়াও বইতে রহস্য ও হাসির চমৎকার মিশ্রন ঘটেছে যা পাঠককে বিরক্ত হওয়ার হাত থেকে সুন্দরভাবে রক্ষা করে চলবে। এছাড়া অনুবাদও হয়েছে সুন্দর। সেবার চিরাচরিত অসাধারন অনুবাদ। আশা করি সবার ভালো লাগবে বইটা।

বইয়ের বিবরণ

বইয়ের নামঃ অদৃশ্য মানব
লেখকঃ এইচ. জি. ওয়েলস
অনুবাদকঃ আলহাজ্ব মোঃ আসাদুজ্জামান
পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ২৫৪ টি।
ক্যাটেগরিঃ সায়েন্স ফিকশন
পিডিএফ সাইজঃ ৯ মেগাবাইট প্রায়।
রকমারি থেকে ক্রয় করার লিঙ্কঃ অদৃশ্য মানব বই

Download Now



#বইটি ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। #লেখকের ক্ষতি আমাদের কাম্য নয়,  বইটির হার্ড কপি কেনার সমর্থ থাকলে বইটির হার্ড কপি কিনে পড়ুন।
#(আমাদের ব্লগের সমস্ত বইগুলো ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। লেখকের বা প্রকাশনীর যদি কোনো বইয়ের PDF নিয়ে অভিযোগ থাকে তাহলে দয়াকরে জানান, আমাদেরকে জানানোর ২৪ ঘন্টার মধ্যে PDF টি রিমুভ করে দিবো।) ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। ধন্যবাদ পোস্ট টি পড়ার জন্য।




Post a Comment

0 Comments